History of Sujanagar Mohila Degree College

প্রতিষ্ঠার সুভসুচনা ও প্রতিষ্ঠাতাঃ অত্র এলাকার সুনামধন্য বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ব্যাক্তিত্ব মৃত- মনমথনাথ চৌধুরী ও তার স্ত্রী শ্রীমতি বিভাবতী চৌধুরী মহিলা শিক্ষা বিস্তারের স্বপ্ন দেখেন এবং ১৯৬৬ সালে এই বিদ্যালয়টি চালু করেন। প্রাথমিক ভাবে অত্র এলাকার বিভিন্ন দানশীল ব্যাক্তি বর্গের নিকট থেকে তিনি নিজে ঘুড়ে ঘুড়ে অর্থ সংগ্রহ করে এবং নিজের অর্থ লগ্ন করে সাধারণ তগবিল, সঞ্চয়ী তহবিল ও আনুসাঙ্গিক ব্যয় ভার গ্রহন করেন এবং তার ডাকে সাড়া দিয়ে অত্র এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিগন সর্ব জনাব এম আকবর আলী, মরহুম আহমেদ তফিজ উদ্দিন(বাংলাদেশের পাবনা-২ আসনের প্রথম সংসদ সদস্য), কোমর উদ্দিন আহমেদ(ইউপি চেয়ারম্যান), কফিল উদ্দিন প্রাং, এনায়েত আলী মন্ডল, খোন্দকার ওবায়দুল্লাহ, মোঃ ফজলুল হক, মোঃ তছির উদ্দিন, আব্দুল ওহাব মেম্বর, বিমল কৃষ্ণ চৌধুরী, সুবোধ চন্দ্র সাহা, জিতেন্দ্রনাথ সাহা, সন্তোষ কুমার মালাকার, বুদ্বিশ্বর সাহা প্রমুখ এই বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় সমভুমিকা পালন করেন। আরও অনেক স্থানীয় জনগনও প্রশংসার দাবী রাখে।প্রাথমিক কার্যক্রমঃ এলাকার হিন্দু মহৎ ব্যক্তিদ্বয় জিতেন্দ্র নাথ সাহা, অনিল কুমার সাহা, ও বুদ্বিশ্বর সাহার জমির উপর প্রাথমিক ভাবে দুইটি ছোট কালো টিনের ঘর দিয়ে ৪টি কক্ষ নিয়ে জুনিয়র হাই স্কুল হিসাবে যাত্রা শুরু। প্রথম বছরেই ৬ষ্ঠ,৭ম, ও ৮ম শ্রেণীতে শতাধিক ছাত্রী ভর্তি হয়। সৎ পরিশ্রমী ও উদ্যমী ঊষা রানী মল্লিক বি,এ বি,এড-কে সর্বসম্মতিক্রমে প্রধান শিক্ষিকার দায়িত্ব প্রদান করা হয়।অস্থায়ী পরিচালনা কমিটিঃ সার্কেল অফিসার (উন্নয়ন) প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ মনমথনাথ চৌধুরী, শ্রীমতি বিভাবতী চৌধুরী, আহমেদ তফিজ উদ্দিন, ইউ পি চেয়ারম্যান কোমর উদ্দিন আহমেদ, আঃ হামিদ তালুকদার, সুবোধ চন্দ্র সাহা, বিমল চন্দ্র চৌধুরী ও মোঃ মোজাহার আলী মিয়া প্রমথদের সমন্বয়ে অস্থায়ী পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয় এবং কমিটি দ্বারা সুন্দর ভাবে বিদ্যালয় পরিচালিত হতে থাকে।৯ম শ্রেণী খোলাঃ ০১/০১/১৯৭০ ইং সাল হইতে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদনক্রমে ৯ম শ্রেণীর মানবিক বিভাগ খোলা হয়। এবং আশানুরুপ ছাত্রী ভর্তি হয়। পরবর্তীতে এই ব্যাচের ছাত্রীরা ১৯৭২ সালে অনুষ্ঠিত এস এস সি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করিয়া শতভাগ পাশ করেন।শিক্ষাক্রম শুরু ও ফলাফলঃ সাহিত্যে দক্ষতা থাকায় প্রধান শিক্ষিকা বাংলা ও ইংরেজীর অধিকাংশ ক্লাশ গুলো নিতেন। প্রতিষ্ঠাতা নিজে বিজ্ঞান ও ধর্ম ক্লাশ নিতেন। বাংলা ও ইংরেজীর অনেক ক্লাশ কলেজ অধ্যক্ষ মোঃ ফজলুল হক সাহেব নিতেন। গনিতের শিক্ষক হিসাবে শ্রী অজিত কুমার সাহা, মোঃ আফসার উদ্দিনকে ইংরেজী ও ভু-গোলের শিক্ষক, এছাড়াও ক্লাশ নিতেন আহমেদ তফিজ উদ্দিন,বিভাবতী চৌধুরী। এসব দক্ষতা সম্পন্ন শিক্ষক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিদের ক্লাশ পরিচালনায় ১৯৭২ সালে প্রথম পাবনা সদর জেলা স্কুল কেন্দ্রে এস.এস.সি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করিয়া শতভাগ পাশ করেন। সুনামের সহিত চলার পথে ১৯৮০ সালে বিজ্ঞান বিভাগ খোলা হয়। বিজ্ঞান শিক্ষক হিসাবে দক্ষতা সম্পন্ন ও মেধাবী মোঃ মোক্তার হোসেন(বি,এস,সি-বি,এড) কে নিয়োগ দেওয়া হয়। উল্লেখ্য যে প্রতিষ্ঠা লগ্নে এ থানায় অন্য কোন বালিকা বিদ্যালয় ছিল না। উল্লেখ্য যে এই বিদ্যালয়ের ফলাফল বরাবরই ভাল এবং বোর্ডের মেধা তালিকায়ও অন্তর্ভুক্ত। ২০০৪ সালে অত্র বিদ্যালয়ে বানিজ্য শাখা খোলা হয় এবং দুইজন শিক্ষক মোঃ শাহামত আলী ও মোঃ রবিউল ইসলামকে নিয়োগ দেওয়া হয়। ছাত্রীরা বানিজ্যে আগ্রহী এবং বোর্ড (এস,এস,সি) পরীক্ষায় প্রতি বছরই সন্তোষজনক ফলাফল করিতেছে।এই বিদ্যালয়ের অধ্যায়ন সম্পন্ন ও উচ্চ শিক্ষা লাভ করে অনেকেই আজ উচ্চ মর্যাদা সম্পন্ন পদে অধিষ্ঠিত। বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ শিক্ষিকা, স্কুল শিক্ষিকা, প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষিকা, সরকারী অন্যান্য বিভাগে ছোট-বড় বিভিন্ন পদে অধিষ্ঠিত। অনেকে ইঞ্জিনিয়ার,কৃষিবিদ,ডাক্তার,ও পরমানু বিজ্ঞানীও হয়েছে। এখানে অধ্যায়ন করে অনেক ছাত্রী সমাজ সংস্কারক রাজনীতিবিদ হয়েছে। এই বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা অনেক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে ভ’য়সী প্রশংসা লাভ করে। আওয়ামী পন্থী এলাকায় বিদ্যালয়টি অবস্থিত বলে মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার ও পাক বাহিনীর দ্বাড়া বিদ্যালয়টি অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। উপজেলার প্রথম প্রতিষ্ঠিত এই বালিকা বিদ্যালয়টি সাবেক আওয়ামীলীগ সংসদ সদস্য মরহুম আহমেদ তফিজ উদ্দিন সাহেব সার্বক্ষনিক তদারকি করতেন। বর্তমানে তার জেষ্ঠ্যপুত্র সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এবং বর্তমান সংসদ পাবনা-২ আহমেদ ফিরোজ কবির তদারকি করিতেছেন।